রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ । ১৩ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

কশবামাজাইল এ এইচ উচ্চ বিদ্যালয়ের বার্ষিক বনভোজন অনুষ্ঠিত

অনলাইন ডেস্ক »

সম্প্রতি সাভার মিলিটারী ফার্মের বনরুপা পিকনিক স্পটে রাজবাড়ী জেলার পাংশা উপজেলাধীন কশবামাজাইল এ এইচ উচ্চ বিদ্যালয়ের বার্ষিক বনভোজন অনুষ্ঠিত হয়। পঁচাত্তর বছরের ঐতিহ্যবাহী স্কুলের এটাই প্রথম সম্মিলিত প্রাক্তন ছাত্র ছাত্রীর উপস্থিততে এক মহামিলনের বনভোজন অনুষ্ঠিত হলো।

স্কুল থেকে পাশ করে দীর্ঘদিন পর অনেকের সাথে এটা ছিলো প্রথম সাক্ষাৎ। আবেগে আপ্লুত হয়ে প্রাণের বন্ধুদের বুকে জড়িয়ে ধরে সুখের অশ্রু বিসর্জন দিতে দেখা গেছে অনেককে। সত্যি সে এক মনোমুগ্ধকর পরিবেশে মহামিলনের দৃশ্য। বন্ধু ছাড়া মানুষ চলতে পারে না আর সেটা যদি হয় স্কুল জীবনের বন্ধু তাহলে তো কথাই নেই। বিশেষ করে স্কুল জীবনের বন্ধুকে কখনো ভুলা যায় না।পরিবার পরিজনের সাথে বন্ধুদের পরিচয়, সবার মাঝে সবার যে দেখা সাক্ষাৎ সুখ দুঃখের আলাপন বিভিন্ন বিষয় খেলা ধুলা হৈচৈ করে দিনটা কিভাবে অতিবাহিত হলো বুঝা গেলো না।

বনভোজনে রাফেল ড্র ছিলো সব চেয়ে আকর্ষণীয় বিষয়। বিসটি আকর্ষণীয় পুরস্কার রাখা হয় যার প্রথম পুরস্কার ছিলো ৪৮ ইঞ্চি এলইডি টেলিভিশন, দ্বিতীয় পুরস্কার ফ্রিজ, তৃতীয় পুরস্কার মাইক্রোওভেনসহ আরও অনেক পুরস্কার।

গান কবিতা কৌতুক পরিবেশন করে এক্স স্টুডেন্ট ও তাদের স্ত্রী সন্তানেরা। সব শেষে রেডিও টেলিভিশনের নিয়মিত শিল্পীর পরিবেশিত সাংস্কৃতি অনুষ্ঠানের মাধ্যমে বনভোজন শেষ হয়।সম্প্রতি সাভার মিলিটারী ফার্মের বনরুপা পিকনিক স্পটে রাজবাড়ী জেলার পাংশা উপজেলাধীন কশবামাজাইল এ এইচ উচ্চ বিদ্যালয়ের বার্ষিক বনভোজন অনুষ্ঠিত হয়। পঁচাত্তর বছরের ঐতিহ্যবাহী স্কুলের এটাই প্রথম সম্মিলিত প্রাক্তন ছাত্র ছাত্রীর উপস্থিততে এক মহামিলনের বনভোজন অনুষ্ঠিত হলো।

স্কুল থেকে পাশ করে দীর্ঘদিন পর অনেকের সাথে এটা ছিলো প্রথম সাক্ষাৎ। আবেগে আপ্লুত হয়ে প্রাণের বন্ধুদের বুকে জড়িয়ে ধরে সুখের অশ্রু বিসর্জন দিতে দেখা গেছে অনেককে। সত্যি সে এক মনোমুগ্ধকর পরিবেশে মহামিলনের দৃশ্য। বন্ধু ছাড়া মানুষ চলতে পারে না আর সেটা যদি হয় স্কুল জীবনের বন্ধু তাহলে তো কথাই নেই। বিশেষ করে স্কুল জীবনের বন্ধুকে কখনো ভুলা যায় না।পরিবার পরিজনের সাথে বন্ধুদের পরিচয়, সবার মাঝে সবার যে দেখা সাক্ষাৎ সুখ দুঃখের আলাপন বিভিন্ন বিষয় খেলা ধুলা হৈচৈ করে দিনটা কিভাবে অতিবাহিত হলো বুঝা গেলো না।

বনভোজনে রাফেল ড্র ছিলো সব চেয়ে আকর্ষণীয় বিষয়। বিসটি আকর্ষণীয় পুরস্কার রাখা হয় যার প্রথম পুরস্কার ছিলো ৪৮ ইঞ্চি এলইডি টেলিভিশন, দ্বিতীয় পুরস্কার ফ্রিজ, তৃতীয় পুরস্কার মাইক্রোওভেনসহ আরও অনেক পুরস্কার।

গান কবিতা কৌতুক পরিবেশন করে এক্স স্টুডেন্ট ও তাদের স্ত্রী সন্তানেরা। সব শেষে রেডিও টেলিভিশনের নিয়মিত শিল্পীর পরিবেশিত সাংস্কৃতি অনুষ্ঠানের মাধ্যমে বনভোজন শেষ হয়।

আপনার মন্তব্যটি লিখুন
শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »